বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১৭ নভেম্বর ২০১৬

বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন এবং আই.ইউ.সি.এন বাংলাদেশ এর মধ্যে প্রকল্প বাস্তবায়নের পার্টনারশীপ চুক্তি (Agreement) স্বাক্ষর অনুষ্ঠিত।


প্রকাশন তারিখ : 2016-11-16

বাপক-এর পরিচালক (প্রশাসন ও অর্থ) জনাব মুহাম্মদ মউদুদউর রশীদ সফদার ও আইইউসিএন-এর কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ জনাব ইশতিয়াক উদ্দিন নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চুক্তি স্বাক্ষর করেন। 

Bangladesh Climate Change Trust Fund (BCCTF)-এর আওতায় বাংলাদেশে ইকো-ট্যুরিজম, কমিউনিটি বেইজড ট্যুরিজম, রেসপন্সিবল ট্যুরিজম এবং সর্বোপরি টেকসই পর্যটন উন্নয়ন এর লক্ষ্যে বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন এবং আই.ইউ.সি.এন-বাংলাদেশ এর মধ্যে ১৬ নভেম্বর ২০১৬ বিকাল ৩:০০ টায় হোটল অবকাশের সম্মেলন কক্ষে একটি পার্টনারশীপ চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন এর পক্ষে সরকারের অতিরিক্ত সচিব এবং সংস্থার পরিচালক (অর্থ ও প্রশাসন) জনাব মুহম্মদ মউদুদউর রশীদ সফদার এবং আই.ইউ.সি.এন. বাংলাদেশ এর পক্ষে সংগঠনের কান্ট্রি রিপ্রিজেন্টেটিভ জনাব ইশতিয়াক উদ্দিন চুক্তি স্বাক্ষর করেন।

চুক্তি স্বাক্ষর করার ফলে উভয় সংস্থা বাংলাদেশ ক্লাইমেট চেইঞ্জ ট্রাস্ট ফান্ড (BCCTF) এর আওতায় আগামি ০২ (দুই) বছরের জন্য বাংলাদেশের সিলেট বিভাগের হাওর এলাকায় যেমন- টাঙ্গুয়ার হাওর, ধর্শপাশা, শ্রীমঙ্গল, তাহিরপুর, বিশ্বম্ভরপুর, ছাতক, লাওয়াছড়া অঞ্চলে পরিবেশবান্ধব পর্যটন উন্নয়ন, স্থানীয় জনগণকে পর্যটন কর্মকান্ডে সম্পৃক্তকরণের মাধ্যমে তাঁদের জীবিকায়ন সৃষ্টি এবং বিভিন্ন ধরণের পর্যটন উন্নয়নে গবেষণা পরিচালনাসহ "Promoting Responsible Tourism to Develop Climate Resilient Tourism Industry in Bangladesh" প্রকল্প বাস্তবায়নে পারস্পরিক সহযোগিতা প্রদান করবে। চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন এর চেয়ারম্যান জনাব অপরূপ চৌধুরী, পিএইচ.ডি, বেসামরকি বিমনি পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়সহ বাংলাদেশ ক্লাইমেট চেইঞ্জ ট্রাস্ট ফান্ড (BCCTF) এর উর্ধতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

এখানে উল্লেখ্য যে, গত ৯ মে ২০১৬ উভয় সংস্থা  বাংলাদেশ ক্লাইমেট চেইঞ্জ ট্রাস্ট ফান্ড (BCCTF) এর আওতায় পর্যটন উন্নয়ন ভবিষ্যতে প্রকল্প প্রস্তাব/ধারণাপত্র প্রণয়নসহ তহবিল সংগ্রহে পরস্পরকে সহযোগিতা প্রদান করবে মর্মে সমঝোতা একটি সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। সমঝোতা স্মারকে বাংলাদেশের পর্যটন সম্ভাবনাকে গুরুত্ব দিয়ে দেশের পরিবেশ ও প্রতিবেশ সংরক্ষণ এবং পরিবেশ বান্ধব পর্যটন উন্নয়নের মাধ্যমে কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও দারিদ্র্য বিমোচনের লক্ষ্যে দুই সংস্থা একযোগে কাজ করার জন্য অনেকগুলো লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়। তন্মেধ্যে উল্ল্যেখযোগ্য হচ্ছে - লোকাল কমিউনিটি এবং দেশি-বিদেশি পর্যটকদের জন্য কমিউনিকেশন হাব তৈরী, বাটারফ্লাই পার্ক, ইকোপার্ক, ওয়াইল্ডলাইফ পার্ক, অভয়ারণ্য, গ্রীণ রেসপাইট ইত্যাদি পরিবেশবান্ধব সুবিধাদি স্থাপন। এছাড়া, পর্যটন কর্মকান্ডের ফলে পরিবেশগত নেতিবাচক প্রভাব হ্রাসকরণের লক্ষ্যে জাতিসংঘ বিশ্ব পর্যটন সংস্থা UNWTO কর্তৃক প্রণীত ‘বিশ্বব্যাপী পর্যটকদের জন্য আচরণবিধি’ (UNWTO Global Code of Ethics) বাস্তবায়ন এবং প্রাকৃতিক-সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য সংরক্ষণ ও নৃ-তাত্ত্বিক জাতিগোষ্ঠির সংস্কৃতির বিকাশ  সাধন করা। এছাড়া উভয় সংস্থা জাতিসংঘ Technical Cooperation among Developing Countries (TCDC) Ges Economic Cooperation among Developing Countries (ECDC) Framework এর আওতায় সহযোগিতা প্রাপ্তির লক্ষ্যে একত্রে কাজ করবে মর্মে সমঝোতা স্মারকে উল্ল্যেখ করা হয়।


Share with :
Facebook Facebook